বগুড়ায় স্কুলছাত্রীর ধর্ষণের ভিডিও ভাইরাল, আটক শিক্ষক রিমান্ডে

বগুড়ায় স্কুলছাত্রীর ধর্ষণের ভিডিও ভাইরাল, আটক শিক্ষক রিমান্ডে

বগুড়ায় স্কুলছাত্রীর ধর্ষণের ভিডিও ভাইরাল, আটক শিক্ষক রিমান্ডে
Apr 18
03:382018
74

স্কুলছাত্রীর আপত্তিকর ভিডিও ভাইরাল… বগুড়া সদরের এক স্কুলছাত্রীর আপত্তিকর ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত লাইব্রেরিয়ান ফারুক হোসেন বাবুর (৪৫) দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরিফুল ইসলামের আদালত।
পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে কর্মকর্তা সোমবার (১৬ এপ্রিল) বিকালে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরিফুল ইসলাম এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
এর আগে এ মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা সোমবার বিকালে আদালতে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেছিলেন।
তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর থানার এসআই ওয়াদুদ আলী জানান, বগুড়া সদর উপজেলার রজাকপুর গ্রামের সোলেমান হোসেনের ছেলে ফারুক হোসেন বাবু চাঁদমুহা সরলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের লাইব্রেরিয়ান। তিনি ২০১৬ সালে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। বাবু কৌশলে এ দৃশ্য ভিডিও করে রাখে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদ হোসেন জানান, ২০১৬ সালে ফারুক হোসেন একাধিক শিক্ষার্থীকে প্রাইভেট পড়াতেন, সেখানে ছিলেন তার লালসার শিকার অষ্টম শ্রেণির ওই ছাত্রীও।
ফারুক অন্য শিক্ষার্থীদের প্রাইভেটের ব্যাচ থেকে বাদ দিয়ে কেবল ওই ছাত্রীকে পড়াতে থাকেন। এরই একপর্যায়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে তা মোবাইল ফোনে ধারণ করেন। সেই ধারণকৃত ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে গত দুই বছরে ছাত্রীর কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে হাতিয়ে নেন দুই লাখের অধিক টাকা।
সবশেষ গত ২৮ মার্চ প্রাইভেট পড়তে আসলে ওই ছাত্রীর কাছে আরও ২০ হাজার টাকা দাবি করেন ফারুক। টাকা দিতে অস্বীকার করায় ধারণকৃত ভিডিও বিভিন্ন মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে দেন তিনি।

সম্প্রতি ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রচার হয়। বর্তমানে দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া ওই ছাত্রীর সহপাঠীরা এটি ফেসবুকে দেখার পর ক্ষুব্ধ হয়। তারা লাইব্রেরিয়ান বাবুর বিচারের দাবিতে গত ৮ এপ্রিল স্কুলের সামনে সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।
সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে জড়িতদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। এ ব্যাপারে ছাত্রীর বাবা সদর থানায় বাবু, লিটনসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার পরপরই পুলিশ লিটনকে গ্রেফতার করে।
গত ১২ এপ্রিল অভিযুক্ত বাবু আদালতে আত্মসমর্পণ করলে জেলহাজতে পাঠানো হয়। পুলিশ কর্মকর্তাদের ধারণা, ছাত্রীকে ব্ল্যাকমেইল করতে বাবু নিজেই ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল করেছে।
তদন্তকারী কর্মকর্তা আরও জানান, বাবুকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। ওই ভিডিওটি যাচাই করা হচ্ছে। এছাড়া অপর আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

 

নির্বাচিত সংবাদ

More Articles

অনলাইন জরিপ

সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী দেড় বছরের মধ্যে প্রতিটি জেলায় ফোর-জি সেবা চালু হবে বলে মনে করেন কি?

পুরোনো ফলাফল